• ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ২২শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

কুষ্টিয়া পাসপোর্ট অফিসে সাংবাদিককে আটকে রাখলেন সহকারী পরিচালক

khaskhabarbd24
প্রকাশিত মার্চ ১৯, ২০২৪

কুষ্টিয়া আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে দুর্নীতি-অনিয়মের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে কর্মকর্তাদের হেনস্তার শিকার হয়েছেন অনলাইন নিউজ পোর্টাল ঢাকা পোস্টের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি রাজু আহমেদ। এসময় প্রায় এক ঘণ্টা তাকে আটকে রেখে হেনস্তার পাশাপাশি মানসিক নির্যাতন করা হয়। এসময় মোবাইল কেড়ে নিয়ে সব ছবি ও ভিডিও ডিলিট করে দেয়া হয়। পরে কুষ্টিয়ার সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা তাকে উদ্ধার করেন।

আজ মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) সংবাদ সংগ্রহের এক পর্যায়ে দুপুর ১২টার দিকে ছবি তুলতে দেখলে পাসপোর্ট অফিসের রেকর্ড কিপার হাসানুজ্জামান ওরফে হাসানের নেতৃত্বে কয়েকজন আনসার সদস্য সাংবাদিক রাজু আহমেদকে নানান হুমকি ধামকি দেন এবং জোরপূর্বক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেনের অফিস কক্ষে আটকে রাখেন। এসময় সাজ্জাদ হোসেন ও অফিসের লোকজন ওই সাংবাদিককে নানাভাবে হেনস্তা করেন।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী সাংবাদিক রাজু আহমেদ বলেন, মঙ্গলবার সকালে পাসপোর্ট অফিসের অনিয়ম দুর্নীতির সংবাদ সংগ্রহে গিয়েছিলাম। সেখানে একজন ভুক্তভোগীর সঙ্গে কথা বলা শেষে দেখি অফিসের দ্বিতীয় তলায় রেকর্ড কিপার হাসানুজ্জামান কয়েকজন দালালের সঙ্গে কথা বলছেন। এ সময় তাদের ছবি তুলতে গেলে হাসানুজ্জামান ও কয়েকজন আনসার সদস্য আমাকে নানাভাবে হেনস্তা করেন এবং জোরপূর্বক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেনের অফিস কক্ষে নিয়ে যান। এসময় সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন আমাকে আটকে রাখেন এবং নানাভাবে হেনস্তা করেন। তিনি আমাকে পুলিশে দেওয়ার ও জেলের ভাত খাওয়ানোর হুমকিধামকি দেন। অনুমতি না নিয়ে পাসপোর্ট অফিসে সংবাদ সংগ্রহে গিয়েছি এজন্য আমাকে প্রায় এক ঘণ্টা আটকে রেখে হেনস্তা করা হয়। এসময় মোবাইল কেড়ে নিয়ে সব ছবি ও ভিডিও ডিলিট করে দেয়া হয়। পরে সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা এসে আমাকে উদ্ধার করেন। পরে সাংবাদিক সংগঠনের নেতাদের সামনে তারা তাদের ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চান। এবং ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।

এসময় পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন ভুক্তভোগী সাংবাদিককে বলেন, পাসপোর্ট অফিসে সংবাদ সংগ্রহে এলে বা ছবি তুলতে হলে আমার অনুমতি লাগবে। বিনা অনুমতিতে ছবি তোলার নিয়ম নেই। আমি কে, তুমি আমাকে চিনো না। তোমাকে পুলিশে দেব। জেলের ভাত খাওয়াবো।

কুষ্টিয়া জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি তারিকুল হক তারিক বলেন, আমি কয়েকদিন আগে থেকে জানতাম ঢাকা পোস্টের সাংবাদিক রাজু আহমেদ পাসপোর্ট অফিসের দুর্নীতি অনিয়ম ও দালাল চক্র নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করছে। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টায় জানতে পারলাম পাসপোর্ট অফিসে সংবাদ সংগ্রহকালে ছবি তুলতে গেলে তাকে আটকে হেনস্তা করা হচ্ছে। এই খবর পেয়ে সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা তাকে উদ্ধার করে। এসময় ভুল স্বীকার করে পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীরা ভুক্তভোগী সাংবাদিকের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতি অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। সেসব নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করার জন্য রাজুকে আটকে রেখে হেনস্তা করার ঘটনায় আমি তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সঙ্গে অনিয়ম দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

স্থানীয় দৈনিক দর্পন পত্রিকার সম্পাদক ও কুষ্টিয়া এডিটরস ফোরামের সভাপতি মুজিবুল শেখ বলেন, ঢাকা পোস্টের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি রাজু আহমেদ পাসপোর্ট অফিসের দুর্নীতি অনিয়মের সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে তাকে আটকে রাখা হয়। নানাভাবে হেনস্তা করা হয়েছে। অনুমতি না নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ ও ছবি তুলতে যাওয়ার কারণে সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন রাজুকে আটকে হেনস্তা করে। পুলিশে দেওয়ার ও জেল খাটানোর ভয়ভীতি দেখায়। এ ঘটনায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

সরকারি অফিসে সংবাদ সংগ্রহে যাওয়া সাংবাদিকের দায়িত্ব। এক্ষেত্রে পাসপোর্ট অফিসে সংবাদ সংগ্রহ করতে বা ছবি তুলতে অনুমতির প্রয়োজন নেই। সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেনের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। সাংবাদিককে আটকে রেখে হেনস্তা করায় তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অনুরোধ জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন ঢাকা পোস্টকে বলেন, ওই সাংবাদিক অনুমতি ছাড়াই অফিসে এসে ছবি তুলেছেন। এজন্য তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমার রুমে ডাকা হয়েছিল। তার সঙ্গে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।