• ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ২২শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ভুট্টা ক্ষেতে মিষ্টি বিষ!কাঠবিড়ালের পরিবর্তে শিশুর মৃত্যু

khaskhabarbd24
প্রকাশিত এপ্রিল ৭, ২০২৩

বাড়ির পাশে ভূট্টা ক্ষেতে কাঠবিড়ালের উপদ্রব ঠেকাতে ক্ষেতে আঁখের গুড়ের সাথে বিষ মিশিয়ে মিষ্টি বানিয়ে ফাঁদ পেতে রেখেছে এক কৃষক আবু তালেব। খেলার ছলে সেই মিষ্টি খেয়ে এক শিশু নোভা (৪) মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।এঘটনায় অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে আরো এক শিশু সায়েম(৩)।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের হোগলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।নিহত শিশু ওই এলাকার ইবাদুল হোসেনের মেয়ে নোভা খাতুন (৩) এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশু একই এলাকার সাইদুল ইসলামের ছেলে মো. সায়োম (৩)। তারা দুজন সম্পর্কের চাচাতো ভাই বোন।

পুলিশ, হাসপাতাল ও এলাকাবাসী সুত্রে জানায়, কৃষক আবু তালেব ভূট্টা খেতে কাঠবিড়ালি মারার জন্য গুড়ের সাথে বিষ মিশিয়ে গোল  মিষ্টি বানিয়ে রাখে।বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশে অবস্থিত ওই খেত থেকে শিশু নোভা ও সায়েম মিষ্টি খায়। মিষ্টি খেয়ে তারা অসুস্থ হয়ে পড়লে স্বজনরা তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদের  কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। সেখানকার চিকিৎসক নোভাকে মৃত ঘোষণা করে এবং সায়োমকে ভর্তি করে। সায়োম বর্তমানে আশঙ্খা মুক্ত বলে জানা গেছে।

এবিষয়ে নিহত শিশুর দাদা বসির উদ্দিন বলেন, বাড়ির পাশের ভূট্টা খেত থেকে বিষ মিশানো মিষ্টি খেয়ে নোভা মারা গেছে। আর সায়োম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। কৃষক আবু তালেব  বলেন,  ফসলে কাঠবিড়ালের উপদ্রব। তা নিধনের জন্য আমি আঁখের গুড়ের সাথে বিষ মিশিয়ে রাখি। কিন্তু এভাবে দুর্ঘটনা ঘটবে তা বুঝতে পারিনি।
কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা (আরএমও) হোসেন ইমাম বলেন, একজন শিশু হাসপাতালে পৌছানোর পূর্বেই মারা গিয়েছিল। অপরজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সে বিপদমুক্ত আছে।
কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোহসীন হোসাইন বলেন, ভূট্টা খেতের কাঠবিড়ালি মারা বিষপানে এদুর্ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#